সোমবার, ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

পশ্চিম ইরানে জলাশয়ে দেখা মিলল ৫শ নাইট হিরনের

পোস্ট হয়েছে: এপ্রিল ১৮, ২০১৯ 

news-image

ইরানের পশ্চিমাঞ্চলে প্রথমবারের মতো দেখা মিলেছে প্রায় ৫শ নাইট হিরন পাখির। কোরদেস্তান প্রদেশের জারিভার জলাশয়ে বিরল প্রজাতির এই পাখিগুলোর উপস্থিতি চোখে পড়েছে। ইরানের পরিবেশ অধিদপ্তরের মারিভান ডিপার্টমেন্টের এক কর্মকর্তা এই তথ্য জানিয়েছেন।

নাইট হিরনের ঘাড় ছোট হয়ে থাকে, পাগুলোও ছোট ছোট। অতর্কিত ভাবে শিকার ধরতে তারা জলাধারের কিনারায় স্থির চিত্তে দাঁড়িয়ে থাকে। নাইট হিরন রাতের বেলায় শিকার করে থাকে। আর দিনের বেলায় গাছ অথবা ঝোপঝাড়ে বিশ্রাম নেয়। প্রাথমিকভাবে নাইট হিরন ছোট মাছ, কবচা, ব্যাঙ, জলজ কীটপতঙ্গ, এবং ছোট স্তন্যপায়ী প্রাণী ভক্ষণ করে।

নাইট হিরন মূলত জন্ম নেয় দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলীয় ইউরোপে। শীতকালে অভিবাসী পাখিটি সাহারা জুড়ে কেন্দ্রীয় ও পশ্চিম আফ্রিকায় অভিগমন করে থাকে।

ইরানি বার্তা সংস্থা ইরনার খবরে জানানো হয়, জারিভার জলাশয়ে গণনা করে ৫শ নাইট হিরন পাওয়া গেছে। বিগত তিন দশকে এত পরিমাণ নাইট হিরনের উপস্থিতি নজিরবিহীন বলে জানিয়েছেন রিভান ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা হাবিবোল্লাহ দাবেস্তানি। এছাড়া জলাশয়টিতে প্রথমবারের মতো বিরল বিপন্ন প্রজাতির কপিকল পাখির দেখা মিলেছে বলে জানান তিনি। সূত্র: তেহরান টাইমস

ইরানের পশ্চিমাঞ্চলে প্রথমবারের মতো দেখা মিলেছে প্রায় ৫শ নাইট হিরন পাখির। কোরদেস্তান প্রদেশের জারিভার জলাশয়ে বিরল প্রজাতির এই পাখিগুলোর উপস্থিতি চোখে পড়েছে। ইরানের পরিবেশ অধিদপ্তরের মারিভান ডিপার্টমেন্টের এক কর্মকর্তা এই তথ্য জানিয়েছেন।

নাইট হিরনের ঘাড় ছোট হয়ে থাকে, পাগুলোও ছোট ছোট। অতর্কিত ভাবে শিকার ধরতে তারা জলাধারের কিনারায় স্থির চিত্তে দাঁড়িয়ে থাকে। নাইট হিরন মূলত রাতের বেলায় শিকার করে থাকে। আর দিনের বেলায় গাছ অথবা ঝোপঝাড়ে বিশ্রাম নেয়। প্রাথমিকভাবে নাইট হিরন ছোট মাছ, কবচা, ব্যাঙ, জলজ কীটপতঙ্গ, এবং ছোট স্তন্যপায়ী প্রাণী ভক্ষণ করে।

নাইট হিরন মূলত জন্ম নেয় দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলীয় ইউরোপে। শীতকালে অভিবাসী পাখিটি সাহারা জুড়ে কেন্দ্রীয় ও পশ্চিম আফ্রিকায় অভিগমন করে থাকে।

ইরানি বার্তা সংস্থা ইরনার খবরে জানানো হয়, জারিভার জলাশয়ে গণনা করে ৫শ নাইট হিরন পাওয়া গেছে। বিগত তিন দশকে এত পরিমাণ নাইট হিরনের উপস্থিতি নজিরবিহীন বলে জানিয়েছেন রিভান ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা হাবিবোল্লাহ দাবেস্তানি। এছাড়া জলাশয়টিতে প্রথমবারের মতো বিরল বিপন্ন প্রজাতির কপিকল পাখির দেখা মিলেছে বলে জানান তিনি। সূত্র: তেহরান টাইমস