বুধবার, ১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

English

বলতেন ইংরেজি কোমা থেকে ফিরে অনর্গল স্প্যানিশ!

পোস্ট হয়েছে: অক্টোবর ২৬, ২০১৬ 

news-image

জীবন পুরোপুরি অনিশ্চয়তায় ভরা আটলান্টার উপকণ্ঠের কিশোর রিউবেনের। একটি ফুটবল খেলায় মারাত্মক আঘাত পাবার পর থেকে খেলায় মনোযোগ দেয়া খুবই কঠিন হয়ে পড়েছিল তার জন্য। এমনকি সে তার সবচেয়ে পছন্দের খেলাটি আর খেলতে পারবে কি-না তা নিয়ে খুবই হতাশ হয়ে পড়ে।

কিন্তু সবচেয়ে আশ্চর্যের ব্যাপার এই যে ১৬ বছর বয়সী এই কিশোর একটি ফুটবল খেলায় আবার তার মাথায় আঘাত পাবার পর সে সম্পূর্ণ স্প্যানিশদের মতো স্প্যানিশ ভাষা বলা শুরু করে।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) তার বাবা-মা জানায়, সে আস্তে আস্তে স্প্যানিশ বলা শুরু করে যদিও সে কখনোই স্প্যানিশ বলতে পারতো না। অবশ্য সে এখন ধীরে ধীরে ইংরেজি বলতে শুরু করেছে।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এমনটি হয়েছে মূলত ‘ফরেইন অ্যাকসেন্ট সিনড্রোম’-এর কারণে। এই বিরল রোগটি ব্রেনের আঘাতের ফলে হয়ে থাকে। সর্বপ্রথম ১৯৪১ সালে নরওয়ের এক মহিলার মাঝে এই রোগটি পাওয়া যায়। তিনি জার্মানিতে একটি বোমা হামলা থেকে বাঁচতে দৌড়ানোর সময় মর্টার শেলের আঘাত পান এবং তারপর থেকে জার্মান ভাষা বলা শুরু করেন।

এছাড়া ৩ বছর আগে দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার একটি মোটেলে এক ব্যক্তিকে পুলিশ উদ্ধার করে যে পূর্বের স্মৃতি ভুলে শুধু সুইডিশ ভাষা বলছিলো।

অস্ট্রেলিয়ায়ও মারাত্মক গাড়ি দুর্ঘটনায় এক ব্যক্তি তার মেরুদ- এবং চোয়াল ভাঙেন। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে তিনি সুস্থ হয়ে পুরোপুরি ফরাসি ভাষায় কথা বলা শুরু করেন।

এই বছরের শুরুতে টেক্সাসে এক মহিলার চোয়ালের অপারেশনের পর থেকে তিনি অনর্গল ব্রিটিশ অ্যাকসেন্টে ইংরেজি বলা শুরু করেন।

ক্যারেন ক্রট সিএনএনকে বলেন, কথা বলা হচ্ছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা কাজ যা ব্রেনের অনেকগুলো চলমান অংশের মধ্যমে সংগঠিত হয়ে থাকে। যদি এর এক বা একাধিক অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয় তাহলে কথা বলার ধরণ বা সুর পরিবর্তিত হয়ে যেতে পারে।

সূত্র: সিএনএন