শনিবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

২০ লাখ ডলার পেয়েও যে কুরআন বিক্রি করেনি

পোস্ট হয়েছে: আগস্ট ৪, ২০১৬ 

news-image
সিরিয়ার এক ক্যালিগ্রাফা একনিষ্ঠ পরিশ্রম করে সোনালি রঙ্গের সোনার সুতো দিয়ে পবিত্র কুরআনের আয়াত সেলাই করে এক খণ্ড কুরআন লেখার কাজ সম্পন্ন করেছেন। স্বর্ণের এই কুরআন শরিফের পাণ্ডুলিপিটি ক্রয় করার জন্য ২০ লাখ মার্কিন ডলার প্রস্তাব দিলে সিরিয়ার এই ক্যালিগ্রাফা সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।
 
resized_7119_127সিরিয়ার ক্যালিগ্রাফার মাহের আল-হাজারি সিরিয়ার আলেপ্পো থেকে হিজরত করে তুরস্কের ব্রসা শহরে জীবনযাপন করছেন। তিনি আশাবাদীদীর্ঘ প্রচেষ্টার পর তিনি যে কুরআন শরিফটি সম্পন্ন করেছেন দর্শনার্থীদের পরিদর্শনের জন্য সেটি জাদুঘরে সংরক্ষিত থাকুক।
রাশিয়ার আল-ইয়াউম সংবাদপত্র জানিয়েছেসিরিয়ার এই ক্যালিগ্রাফা সোনার সুতো দিয়ে লিখে যে পবিত্র কুরআনটি সম্পন্ন করেছেনসেটি ইস্তাম্বুলে ইন্টারন্যাশনাল আরবি গ্রন্থ মেলায় উপস্থাপন করা হয়েছে এবং সেখানে অনেক গ্রাহকই এই অনন্য ও অসাধারণ কুরআনটি ক্রয় করার জন্য ইচ্ছা প্রকাশ করেন।
 
resized_7121_587এ সম্পর্কে ক্যালিগ্রাফার মাহের আল-হাজারি বলেন: আমি এই কুরআন শরিফটি বিক্রয় করতে প্রস্তুত ন। কারণ,আর্থিক সুবিধা ভোগ করার জন্য আমি কুরআন শরিফের পিছনে সময় ব্যয় করিনি।
 
তিনি বলেন, পবিত্র এই কুরআন শরিফের লেখার কাজ নিখুঁতভাবে সম্পন্ন করতে আমাকে অনেক মনোযোগ সহকারে কাজ করতে হয়েছে। কুরআন শরিফের প্রতি পৃষ্ঠার শুরুতে নতুন আয়াত শুরু হয়েছে এবং প্রতি পৃষ্ঠার শেষে আয়াত শেষ হয়েছে।সোনার সুতো দিয়ে এই কুরআন শরিফের পাণ্ডুলিপিটি লিখতে ৪ বছর সময় লেগেছে এবং এটি বিন্যাসে ৪ বছর সময় লেগেছে।
 
resized_7123_715মাহের আল-হাজারি বলেন: পবিত্র কুরআনের ৩০ পারাকে মোট ১২টি খণ্ডে বিভক্ত করা হয়েছে। প্রতিটি খণ্ডে আড়াই পারা করে আনা হয়েছে। প্রতি খণ্ডের ওজন ১৫ কিলোগ্রাম এবং মোড়ক সহকারে সকল খণ্ডের ওজন ২০০ কিলোগ্রাম।
 
তিনি বলেন: এই কুরআন শরিফের কাজ করার সময় অনেক আলেম এর নজরদারি করেছেন।
 
সিরিয়ার এই ক্যালিগ্রাফা বর্তমানে দর্জির কাজ করছে। দর্জি কাজের পাশাপাশি তিনি এই অসাধারণ কাজ করেন। কুরআন শরিফ ছাড়াও তিনি সেলাই করে অনেক ধর্মীয় গ্রন্থও লিখেছেন। সূত্র: ইকনা