শনিবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং, ১লা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

English

সৌরজগতের প্রান্তসীমায় পৌঁছেছে ‘ভয়েজার ওয়ান’; নতুন জগতের সন্ধান

পোস্ট হয়েছে: জানুয়ারি ৩০, ২০১৩ 

news-image
সৌরজগতের কিনারায় পৌঁছেছে মহাকাশযান ‘ভয়েজার ওয়ান’। মহাবিশ্বের রহস্য উদঘাটনে ৩৫ বছর আগে উতক্ষেপণ করা নাসার এ মহাকাশযানটি অবশেষে বিজ্ঞানীদের সামনে এক নতুন দুয়ার উন্মোচন করতে যাচ্ছে।

মানুষবিহীন এই নভোযানের যাত্রার ৩৫তম বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে আমেরিকার মহাকাশ গবেষণা সংস্থা- নাসার বিশেষজ্ঞরা এ খবর দিয়েছেন।

তারা জানিয়েছেন, পৃথিবী থেকে এক হাজার একশ’ কোটি মাইল দূরে আমাদের সৌরজগতের বাইরে নতুন এক স্তরের সন্ধান পেয়েছে ভয়েজার ওয়ান।

নাসা বলেছে, ভয়েজারের পাঠানো তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে বোঝা যাচ্ছে, মহাকাশযানটি এখন নতুন চৌম্বকীয় মহাসড়কে প্রবেশ করেছে; যাকে মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সির অন্য আরেক সৌর ব্যবস্থাপনার প্রবেশ দ্বার হিসেবে চিহ্নিত করছেন বিজ্ঞানীরা।

মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সিতে আমাদের পরিচিত সৌরজগতের মত হাজার হাজার কোটি সৌরজগত রয়েছে।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, আমাদের পরিচিত সূর্যের আকর্ষণের বাইরে চলে গেছে ভয়েজার ওয়ান। এখন মহাকাশযানটি ভিন্ন দিক থেকে চৌম্বক আকর্ষণ অনুভব করছে।

মহাকাশযানটির ওপর সৌর আকর্ষণের পরিবর্তন এবং নতুন এ আকর্ষণ প্রমাণ করে তা আরেক সৌরমণ্ডলের সন্ধান পেয়েছে। মানব সভ্যতার ইতিহাসে এই প্রথম কোন নভোযান সৌরজগতকে অতিক্রম করলো।

বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন, নতুন নক্ষত্রের প্রভাব বলয়ের বাইরে যেতে নভোযানটির আরো দুই বছর সময় লাগবে।নাসার বিজ্ঞানীদের কাছে ভয়েজার-ওয়ান ২০২০ সাল পর্যন্ত সিগনাল পাঠাতে পারবে। এরপর, জ্বালানি সঙ্কটের কারণে স্তব্ধ হয়ে যাবে ভয়েজারের তথ্য প্রেরণ। তবে তথ্য পাঠানো বন্ধ হলেও ভয়েজার-ওয়ান ৪০ হাজার বছর ধরে তার যাত্রা অব্যাহত রাখতে পারবে এবং কোন দুর্ঘটনা না ঘটলে সেটি পৌঁছে যাবে ১.৬ আলোকবর্ষ (৯.৩ ট্রিলিয়ন মাইল) দূরে AC+ 79 3888 নামক নক্ষত্রের সীমানায়।

সংগ্রহ: রেডিও তেহরান