শনিবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৭ ইং, ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

English

সামরিক সহযোগিতা জোরদার করবে ইরান ও তুরস্ক

পোস্ট হয়েছে: অক্টোবর ৩, ২০১৭ 

news-image

তেহরান সফরে ইরানের সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ বাকেরির সঙ্গে বৈঠক করেছেন তুরস্কের সামরিক বাহিনীর চিফ অব স্টাফ জেনারেল হুলুসি অকার। বৈঠকে মিয়ানামারের নিপীড়িত রোহিঙ্গা মুসলিমদের জন্য দুদেশের সশস্ত্র বাহিনী কীভাবে সহযোগিতা করতে পারে তা নিয়ে আলোচনা করেন দুই সেনাপ্রধান।

সোমবার রাজধানী তেহরানে তুর্কি সেনাপ্রধান জেনারেল হুলুসি অকারের সঙ্গে বৈঠক শেষে এই তথ্য জানান ইরানি সেনাপ্রধান।জেনারেল বাকেরি জানান, সামরিক ক্ষেত্রে তুরস্ক ও ইরান সহযোগিতা জোরদার করবে। যৌথ মহড়ার মাধ্যমে দুদেশের মধ্যে এ সামরিক সহযোগিতা জোরদার করা হবে বলে জানান তিনি।

ইরাকের কুর্দিস্তানের বিচ্ছিন্নতা প্রশ্নে অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া বিতর্কিত গণভোট প্রসঙ্গে দুদেশ যে একই অবস্থান নিয়েছে তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন ইরানের সেনাপ্রধান।

তিনি বলেন, কুর্দিস্তানের গণভোটসহ দুদেশ যে একই ধরনের যেসব হুমকির সম্মুখীন তা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। ইরাকি ভূখণ্ডের অখণ্ডতা সংরক্ষণের গুরুত্ব অনুধাবন করে উভয় পক্ষই একই অবস্থান নিয়েছে।’

বাকেরি জানান, ‘বৈঠকে দুই পক্ষ সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএস এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সিরীয় সেনাবাহিনী ও তাদের মিত্রদের সাম্প্রতিক বিজয় নিয়ে আলোচনা করে। একই সাথে সীমান্তে সন্ত্রাস দমন ও সীমান্ত নিরাপত্তা এবং মিয়ানমারের নিপীড়িত রোহিঙ্গা মুসলিমদের জন্য সশস্ত্র বাহিনী কীভাবে সহযোগিতা করতে পারে তা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।’

বাকেরি বলেন, ইরান ও তুরস্কের সশস্ত্র বাহিনী শিক্ষা ক্ষেত্রে আরও সহযোগিতা করবে। একই সাথে তারা বেশি বেশি যৌথ সামরিক মহড়ার মাধ্যমে সামরিক সহযোগিতা জোরদার করবে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের তেহরান সফরে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানান তিনি।

ইরানের সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ বাকেরির আমন্ত্রণে তুর্কি সেনাপ্রধান এ সফর করছেন। সীমান্ত নিরাপত্তা ও আঞ্চলিক ইস্যুতে সন্ত্রাসবাদবিরোধী অভিযানের বিষয় নিয়ে ইরানের সেনাপ্রধানসহ শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে তিনি আলোচনা করবেন। আগামী ৪ অক্টোবর প্রেসিডেন্ট এরদোগান তেহরান সফর করবেন। সূত্র: মেহের নিউজ এজেন্সি।