রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

সশস্ত্র বাহিনীকে আধ্যাত্মিক শক্তিতেও আরো বলীয়ান হতে হবে: সর্বোচ্চ নেতা

পোস্ট হয়েছে: এপ্রিল ১১, ২০১৬ 

news-image

ইসলামী ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি বলেছেন, ইরানের সেনাবাহিনীকে সামরিক শক্তির পাশাপাশি ধর্মীয় ও আধ্যাত্মিক শক্তিতেও আরও বলীয়ান হতে হবে। ১০ এপ্রিল রোববার ইরানি সামরিক বাহিনীর একদল সিনিয়র কমান্ডারের সঙ্গে বৈঠকে আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি এ কথা বলেন।

সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেছেন,ইসলামী প্রজাতন্ত্রের সেনাবাহিনীর প্রধান দায়িত্ব হচ্ছে জাতীয় নিরাপত্তাকে সুরক্ষা দেয়া। এই লক্ষ্যে সেনাবাহিনীর কর্মদক্ষতা বাড়ানোর পাশাপাশি প্রতিদিনই তাদের আধ্যাত্মিক প্রেরণা বৃদ্ধি করতে হবে। তিনি বলেন, ইরানি সামরিক বাহিনী কোনো ব্যক্তি বা বিশেষ কোনো দল ও গোষ্ঠীর স্বার্থে নিয়োজিত নয় বরং তারা পুরো দেশ ও জাতির কাছে দায়বদ্ধ। দেশ ও জাতির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সামরিক বাহিনী বিশ্বের একমাত্র বাহিনী যাদেরকে আধ্যাত্মিক প্রেরণায় উজ্জীবিত হয়ে নিজেদেরকে দক্ষ বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে হয়। সর্বোচ্চ নেতা আরো বলেন,দারিদ্রপীড়িত ইয়েমেনে পূর্ণ শক্তি দিয়ে হামলা চালানোর এক বছরের পরও সৌদি সামরিক বাহিনী তাদের উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে ব্যর্থ হয়েছে।

তিনি বলেন, শুধু মাত্র ক্ষমতাসীন সরকারকে রক্ষা করার জন্যই বিশ্বের কিছু সামরিক বাহিনী প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এ ধরনের সামরিক বাহিনীকে আপাতদৃষ্টিতে শক্তিশালী মনে হলেও যুদ্ধক্ষেত্রে তারা নৃশংসতা ও নির্মমতায় লিপ্ত হয় বলেও উল্লেখ করেন সর্বোচ্চ নেতা।সূত্র: আইআরআইবি