শুক্রবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর তেহরান সফর

পোস্ট হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৬ 

news-image

দ্বিপক্ষীয় সামরিক সহযোগিতার পাশাপাশি আঞ্চলিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য তেহরান সফর করছেন রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু। ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হোসেইন দেহকানের মস্কো সফরের এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে রোববার তেহরান সফরে এলেন শোইগু।

ইরানের গণমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে, অঘোষিত এই সফরে মূলত সিরিয়ার চলমান পরিস্থিতি প্রাধান্য পাবে। ইরান ও রাশিয়া দুই দেশই সিরিয়া ইস্যুতে দেশটির ক্ষমতাসীন বাশার আল আসাদ সরকারকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে।

এছাড়া ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি’র সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাকে রুশ প্রেসিডেন্টের বিশেষ বার্তা পৌঁছে দেন সের্গেই শোইগু। ইরানি প্রেসিডেন্ট শোইগুকে বলেন, আলাপ আলোচনার মাধ্যমেই কেবল সিরিয়া সংকটের সমাধান হতে পারে। দেশের ভবিষ্যৎ নির্ধারণে সিরিয়ার জনগণের যে অধিকার রয়েছে তাকে অবশ্যই সম্মান করতে হবে।

এর আগে ইরানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী তার সাম্প্রতিক সফরে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী শোইগু এবং উপ প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি রোগোজিনসহ অন্যান্য পদস্থ কর্মকর্তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। দেহকানের সঙ্গে বৈঠকে ইরানের সঙ্গে প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা খাতে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতায় সন্তোষ প্রকাশ করেন প্রেসিডেন্ট পুতিন। দু’দেশের স্বার্থে এ সহযোগিতা আরও বাড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।

দ্বিপক্ষীয় সমারিক সহযোগিতার আওতায় ২০০৭ সালে ইরানের কাছে এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বিক্রির জন্য ৮০ কোটি ডলারের চুক্তি করে রাশিয়া। কিন্তু জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের পক্ষ থেকে আরোপিত নিষেধাজ্ঞার কারণে ২০১০ সালে এটি তেহরানের কাছে হস্তান্তর করতে অস্বীকৃতি জানায় মস্কো। এ নিয়ে জেনেভায় ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব অরবিট্রেশন-এ অভিযোগ জানায় ইরান।

এরপর গত বছরের এপ্রিলে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এক ডিক্রি জারি করে ওই ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা ইরানের কাছে হস্তান্তরের অনুমতি দেন। শনিবার রুশ প্রেসিডেন্টের সামরিক ও প্রযুক্তিগত সহযোগিতা বিষয়ক উপদেষ্টা ভ্লাদিমির রোঝিন বলেছেন, ইরানের কাছে এস-৩০০ ব্যবস্থা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সিরিয়া ইস্যুর বাইরে এটিও সফররত রুশ নেতার আলোচ্যসূচিতে থাকতে পারে। প্রেস টিভি, ইয়াহু