শনিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

রিও অলিম্পিকে ইতিহাস গড়লেন ইরানি তরুণী

পোস্ট হয়েছে: আগস্ট ২১, ২০১৬ 

news-image

রিও ডি জেনেইরো অলিম্পিকের ১৩তম দিনটি ইরানের জন্য একটি ঐতিহাসিক দিন। কারণ ওইদিন তায়কোয়ান্দো প্রতিযোগিতায় মেয়েদের ৫৭ কেজি ওজনশ্রেণিতে ব্রোঞ্জ পদক জিতেছেন ইরানি তরুণী কিমিয়া আলীজাদেহ জিনোরিন। এর মাধ্যমে তিনি অলিম্পিকে প্রথম কোনো ইরানি নারী হিসেবে পদক জেতার গৌরব অর্জন করেন।

4bk8d398f1f122ckfv১৮ বছর বয়সী ইরানি তরুণী কিমিয়া আলীজাদেহ তার সুইডিশ প্রতিপক্ষ নিকিতা গ্লাসনোভিককে ৫-১ পয়েন্টে হারিয়ে ঐতিহাসিক পদক নিশ্চিত করেন। এর পরই তিনি দেশের পতাকা গায়ে জড়িয়ে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন।

এই ইভেন্টে স্পেনের ইভা কালভো গোমেজকে ১৬-৭ পয়েন্টে হারিয়ে সোনা জেতেন ব্রিটেনের  জেড জোন্স।

ব্রোঞ্জ জয়ের পর কিমিয়া আলীজাদেহ তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, “ইরানি তরুণীদের পক্ষ থেকে অলিম্পিকে প্রথম পদক জেতায় আমি ভীষণ খুশি। আমি আশা করছি পরবর্তী অলিম্পিকে আমরা সোনা জিতব।”

4bk8ce3f4698c4ckfy_800C450

তিনি আরও বলেন, “অলিম্পিকে সোনা জয়ের মাধ্যমে আমি ইতিহাস সৃষ্টির আশা করেছিলাম। আল্লাহকে এজন্য ধন্যবাদ যে, আমি ব্রোঞ্জ পদক জেতার মাধ্যমে ইরানি নারীদের জন্য সেই পথ খুলে দিতে পেরেছি।”

আবেগাপ্লুত আলীজাদেহ বলেন, “আমার বাবা-মা সবসময় আমার পাশে ছিলেন। তারা আমাকে নিরন্তর উৎসাহ দিয়ে গেছেন। আমাকে আজকের পদক জয়ের যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলেছেন আমার কোচ। তাদের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা নেই। এই অসাধারণ মানুষগুলোকে পাশে পেয়ে নিজেকে সত্যিই ভাগ্যবান মনে হচ্ছে।”

4bk811586c6611cgja_800C450

অলিম্পিকের ইতিহাসে প্রথম কোনো ইরানি একজন নারী ক্রীড়াবিদ হিসেবে পদক জয়ের পর অভিনন্দনের জোয়ারে ভাসছেন কিমিয়া আলীজাদেহ। খোদ ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি সন্তোষ প্রকাশ করে টুইট করেছেন। টুইটার পেজে দেয়া বার্তায় ইরানের প্রেসিডেন্ট লিখেছেন- “কিমিয়া, আমার কন্যা, তুমি ইরানের সবাইকে, বিশেষ করে তোমাদের দেশের নারীদেরকে খুশি করেছ। আমি তোমার চিরন্তন সুখ কামনা করি।”

এর আগে ২০১৪ সালে যুব অলিম্পিক দুটি পদক জিতেছিলেন আলীজাদেহ। গত বছর বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে তায়কোয়ান্দো প্রতিযোগিতায় ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিলেন তিনি। তাও কোয়ার্টার ফাইনালে লন্ডন অলিম্পিকে সোনা জেতা ইংল্যান্ডের জেড জোন্সকে হারিয়ে।

চলতি বছরের এপ্রিলের মাঝামাঝিতে ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় রিও অলিম্পিকের এশিয় অঞ্চলের বাছাই পর্বে অসাধারণ পারফরমেন্স দেখিয়ে স্বর্ণ পদক জেতেন কিমিয়া আলীজাদেহ। এর মাধ্যমে তিনি চলতি বছরে রিও অলিম্পিক গেমসে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেন।

ম্যানিলার পাসে সিটির ম্যারিয়ট গ্র্যান্ড বলরুমে মাইনাস ৫৭ কিলোগ্রাম ওজনশ্রেণিতে অংশ নিয়ে ফাইনালে থাইল্যান্ডের ফান্নাপা হার্নসুজিনকে ৩-২ এ পরাজিত করে স্বর্ণপদক নিশ্চিত করেন তিনি।

এর আগে ইভেন্টের প্রথম রাউন্ডে কিমিয়া একটি বাই পান এবং কোয়ার্টার ফাইনালে ইন্দোনেশিয়ার প্রতিযোগী শালেহা ফিত্রিয়ানা ইউসুফকে ১৯-০তে পরাজিত করেন। এরপর সেমিফাইনালে তিনি নেপালের প্রতিযোগী নিমা গুরাংকে ১৫-২ পয়েন্টে পরাজিত করে ফাইনাল নিশ্চিত করেন।

‌সূত্র: পার্সটুডে