সোমবার, ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

বিশ্ব ভারোত্তলনে ইরানি নারীদের ইতিহাস

পোস্ট হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯ 

news-image
ইন্টারন্যাশনাল ওয়েটলিফ্টিং ফেডারেশন (আইডব্লিউএফ) বিশ্ব ভারোত্তলন চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথমবারের মতো অংশ নিচ্ছে ইরানের চার নারী অ্যাথলেট। বিশ্ব ভারোত্তলনের মর্যাদাপূর্ণ এই ইভেন্ট থাইল্যান্ডের পাতায়ায় ১৮ সেপ্টেম্বর শুরু হবে। টুর্নামেন্ট চলবে টানা নয় দিন।
 
এবারের প্রতিযোগিতায় রেকর্ড সংখ্যক ভারোত্তলক অংশ নিচ্ছেন। বিশ্বের ১০৫টি দেশ থেকে মোট ৭৩৪জন অ্যাথলেট এতে অংশ নেবেন। এদের মধ্যে ৩৩৯ জন নারী ও ৩৯৫জন পুরুষ ভারোত্তলক।
 
২০২০ টোকিও অলিম্পিকসকে সামনে রেখে এই বিপুল সংখ্যক নারী ভারোত্তলকের অংশগ্রহণকে আশাব্যঞ্জক হিসেবে দেখা হচ্ছে। কেননা, এবারের টোকিও অলিম্পিকে লিঙ্গ সমতার বিষয়টি সবার শীর্ষে রয়েছে। বারবেন্ড ডটকমের প্রতিবেদনে বলা হয়, আসন্ন ২০২০ টোকিও অলিম্পিকস গেমসে অলিম্পিক ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সমান সংখ্যক পুরুষ ও নারী ভারোত্তলক অংশ নেবে।
 
২০১৭ সালে ইরানের ভারোত্তলন ফেডারেশন ঘোষণা দেয়, এখন থেকে এই খেলায় ইরানের নারী ভারোত্তলকরা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিযোগিতা করতে পারবে। তখন থেকে দুবছর পর এবারের আইডব্লিউএফ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ইরানের নারী ভারোত্তলকরা ইতিহাস শুরু করবে।
 
এশিয়ান ভারোত্তলন চ্যাম্পিয়নশিপে ইরানের প্রথম নারী অংশগ্রহণকারী হিসেবে নাম লেখান পুপক বাসামি। তিনি ৫৫ কেজি ওজন-শ্রেণিতে দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বাকি তিন ইরানি নারী অ্যাথলেট হলেন- আবরিশাম আরজোমান্দখান (৬৪ কেজি), এলহাম হোসেইনি (৭১ কেজি) ও পারিসা জাহানফেকরিয়ান (৮৭ কেজি)। সূত্র: তেহরান টাইমস।