মঙ্গলবার, ২৩শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং, ৮ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

English

ফারহাদির ছবি দিয়ে শুরু কান চলচ্চিত্র উৎসব

পোস্ট হয়েছে: মে ৯, ২০১৮ 

news-image

ফ্রান্সের কান শহরে পর্দা উঠলো বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন ও সম্মানজনক কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭১তম আসরের। দুবার অস্কার বিজয়ী ইরানের প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা আসগর ফারহদির পরিচালিত ‘এভরিবডি নোজ’ ছবি প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে এবারের উৎসব।

ফ্রান্সের সাগর পাড়ের শহর কানের পালে দো ফেস্টিভ্যাল ভবনে মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়ে ১৯ মে পর্যন্ত চলবে এ উৎসব। সেদিন উৎসবের পর্দা নামবে আমেরিকান-ব্রিটিশ পরিচালক টেরি গিলিয়ামের ‘দ্য ম্যান হু কিল্ড ডন কুইজট’-এর প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে। বিশ্ব চলচ্চিত্রের অন্যতম জাঁকজমকপূর্ণ এই আয়োজনকে ঘিরে, এরইমধ্যে ফ্রান্সের কান নগরীতে ভিড় করতে শুরু করেছে বিভিন্ন দেশের নামিদামী তারকারা।

‘এভরিবডি নোজ’ ছবির সব সংলাপ স্প্যানিশ। স্পেন ও পর্তুগালের পার্বত্য অঞ্চল আইবেরিয়ান পেনিনসুলায় ছবিটির পুরো শুটিং হয়। ছবিটির পোস্টার মনস্তাত্ত্বিক থ্রিলার ধাঁচের। এতে অভিনয় করেছেন দুই স্প্যানিশ তারকা পেনেলোপি ক্রুজ ও হাভিয়ার বারদেম। এছাড়া আছেন আর্জেন্টিনার রিকার্ডো দারিন। আরো আছেন বারবারা লেনি, এদুয়ার্দ ফার্নান্দেজে, এলভিরা মিঙ্‌গুয়েজ, র‌্যামন বারিয়া, কার্লা ক্যামপ্রা ও ইনমা কুয়েস্তা।। ছবির গল্প লরা নামের এক নারীকে ঘিরে। আর্জেন্টিনার বুয়েন্স আয়ারসে স্বামী-সন্তান নিয়ে তার সুখের সংসার। একদিন পারিবারিক এক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে স্পেনে নিজেদের গ্রামে ফেরে তারা। তখন অপ্রত্যাশিত একটি ঘটনা বদলে দেয় তাদের জীবনের গতিপথ।

এরআগে ২০১১ সালে বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবে আসগর ফারহদির ‘অ্যা সেপারেশন’ সোনার ভালুক (গোল্ডেন বিয়ার) জেতে। ২০১৩ সালে তার পরিচালিত ‘দ্য পাস্ট’ জায়গা করে নেয় কান উৎসবের প্রতিযোগিতা বিভাগে। এতে দারুণ অভিনয়ের সুবাদে ফরাসি তারকা বেরেনিস বেজো কানে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার জেতেন। ২০১৬ সালে প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত ‘দ্য সেলসম্যান’-এর জন্য কানে সেরা চিত্রনাট্যকারের পুরস্কার পান আসগর ফারহদি। একই ছবির জন্য সেরা অভিনেতা হন শাহাব হুসেইনি। এছাড়া অস্কারে বিদেশি ভাষার ছবির বিভাগে সেরা হয়েছে এ ছবিটি।

উৎসবের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ‘প্রতিযোগিতা বিভাগ’-এ স্থান পাওয়া ১৮টি ছবির ৯টিই এশীয় নির্মাতাদের সৃষ্টি। এ বিভাগে দু’জন মার্কিন নির্মাতার ছবি ঠাঁই পেয়েছে। মোট ৮৫টি চলচ্চিত্র দেখানো হবে উৎসবের বিভিন্ন বিভাগে। তবে ‘প্রতিযোগিতা বিভাগ’ থেকেই একজন গ্রহণ করবেন উৎসবের সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘পালমে ডি’ওর’। সূত্র: ইরান ডেইলি।