শুক্রবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

ফজর চলচ্চিত্র উৎসবে বিজয়ী যারা

পোস্ট হয়েছে: মে ৩, ২০১৮ 

news-image

মধ্যপ্রাচ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে চলা আন্তর্জাতিক সিনেমা শিল্পের মিলনমেলা ফজর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। গত ১৯ এপ্রিল থেকে শুরু হয় এই উৎসবের ৩৬তম আসর। মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে প্রভাবশালী এই চলচ্চিত্র উৎসবের পর্দা নামে ২৬ এপ্রিল।

বৃহস্পতিবার রাতে ইরানের রাজধানী তেহরানের ভাহদাত হলে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ঘোষণা করা হয় উৎসবের বিজয়ীদের। এতে সবাইকে টপকে সেরা ছবির পুরস্কার ঘরে তুললেন চলচ্চিত্র নির্মাতা মিলকো লাজারোভ। তার নির্মিত ছবি ‘আগা’ জিতেছে ফজর উৎসবের সবচেয়ে বড় পুরস্কার গ্রান্ড প্রিক্স। ছবিটি যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে বুলগেরিয়া, জার্মানি ও ফ্রান্স। অন্যদিকে, কম্বোডিয়ার প্রামাণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক রিথি প্যান জয় করেছেন পিস অ্যাওয়ার্ড তথা শান্তি পুরস্কার।

ভাহদাত হলে বৃহস্পতিবারের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে যোগ দেন ইরানি ও আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র নির্মাতা ও অতিথিরা। বিজয়ীদের নাম ঘোষণার পর শুরু হয় পুরস্কার প্রদানের কাজ। বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়ার জন্য মঞ্চে ডাকা হয় অলিভার স্টোনকে।

ফজর চলচ্চিত্র উৎসবের বিজয়ীদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা-

আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা বিভাগ (সিনেমা স্যালভেশন)

সেরা ছবি: আগা (বুলগেরিয়া, জার্মানি, ফ্রান্স), চলচ্চিত্র পরিচালক মিলকো লাজারোভ

সেরা পরিচালক: অ্যালেক্সেই জার্মান জুনিয়র, জুনিয়র দোভলাটভ (রাশিয়া, পোল্যান্ড, সার্বিয়া)

সেরা স্ক্রিপ্ট: রামটিন লাভাফি. হ্যাট্রিক (ইরান)

সেরা অভিনেতা: লিয়ন লুকেভ, দ্যা মিনার (স্লোভেনিয়া, ক্রোয়েশিয়া)

সেরা অভিনেত্রী: মাহুর আলভান্দ, হ্যাট্রিক (ইরান)

স্পেশাল জুরি পুরস্কার: রিচার্ড কেন্ড্রিক, সিনেমাটোগ্রাফার. সং অব গ্রানাইট (আয়ারল্যান্ড, কানাডা)

সেরা শর্ট ফিল্ম: ফেইথ, তাতিয়ানিয়া ফেডোরোভসকায়া (রাশিয়া)

স্পেশাল মেনশন: মি. ডির, মোজতাবা মৌসাভি (ইরান)

জুরি বোর্ড: সিনেমা স্যালভেশনের জুরি বোর্ডে ছিলেন সমসাময়িক পোলিশ চলচ্চিত্রের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পরিচালক জোয়ান্না কোস-ক্রাউজ, ম্যাসেডোনীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা মাইলচো ম্যানচেভস্কি, এথেন্সের চলচ্চিত্র পরিচালক দিমিত্রি অ্যাথানিটিস, নতুন ভারতীয় সিনেমার অন্যতম নেতৃস্থানীয় উজ্জ্বল তারকা আদুর গোপালাকৃষ্ণ ও গিওভান্নি স্পেগনোলেত্তি। ইরান থেকে এই জুরি বোর্ডে ছিলেন চলচ্চিত্রকার মাহমুদ কালারি ও অভিনেত্রী মেরিলা জারেয়ি।

এশিয়ান ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড বিভাগ

সেরা এশিয়ান চলচ্চিত্র: ফাদার অ্যান্ড সান, ডুং ডিং লাঙ (ভিয়েতনাম)

সেরা এশীয় পরিচালক: মারিয়াম বাহরোলোলুমি, প্যাটিও (ইরান)

সেরা শর্ট ফিল্ম: পেদাভোর, মোহাম্মাদ কার্ত (ইরান)

ইস্টার্ন ভিস্তা:

প্যানোরামা অব ফিল্ম ফ্রম এশিয়ান অ্যান্ড ইসলামিক কান্ট্রিজ

ইস্টার্ন ভিস্তা বিভাগের জুরি বোর্ডে ছিলেন সালোমে দেমুরিয়া (জর্জিয়া), সুহান পানশা (মালয়েশিয়া), আহমেত বোয়াজিওগলু (তুরস্ক), আম্মার জামাল (ইরাক) ও ফারহাদ আসলানি (ইরান)।

ইন্টারফেইথ অ্যাওয়ার্ড:

গ্রেইন, সেমিহ কাপনালোগলু (তুরস্ক, জার্মানি, ফ্রান্স, সুইডেন, কাতার)

এই বিভাগের জুরি বোর্ডে ছিলেন ভ্যালেরিয়ে দি মার্নহাক (ফ্রান্স), থমাস ক্রোল (জার্মানি), মোহাম্মাদ রেজা জায়েরি (ইরান)।

নেটপ্যাক প্রাইজ

হেন্দি অ্যান্ড হরমোজ, আব্বাস আমিনি (ইরান)

উৎসবের এই বিভাগে বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন অ্যান্দ্রিস আন্ডারবোক (অস্ট্রিয়া), রোমান চাওলা (ভারত) ও হাবিব আহমাদ জাদেহ (ইরান)।

সেরা ফার্স্ট ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড

ড্রেসেজ, পুইয়া ব্যাডকুবেহ (ইরান)

মুহাম্মাদ আল আমিন অ্যাওয়ার্ড

মজিদ মাজিদি, বিয়ন্ড দ্যা ক্লাউডস (ভারত)

শান্তি পুরস্কার

আজীবন শান্তি পুরস্কার, রিথি পানহ (কম্বোডিয়া)

অনারারি ডিপ্লোমা

দ্যা মিনার, হান্না স্লাক (স্লোভেনিয়া, ক্রোয়েশিয়া)

সূত্র: মেহর নিউজ এজেন্সি।