শনিবার, ১৬ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং, ২রা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

English

প্রতিরক্ষা সক্ষমতা শক্তিশালী করে যাবে ইরান: কাসেমি

পোস্ট হয়েছে: অক্টোবর ৮, ২০১৭ 

news-image

ইরান নিজের প্রতিরক্ষা সক্ষমতা শক্তিশালী করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেছে, অন্য কাউকে সেদেশের প্রতিরক্ষা খাতে হস্তক্ষেপ করার অনুমতি দেয়া হবে না।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি আইআরআইবি’কে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। তিনি বলেন, কোনো কোনো পশ্চিমা গণমাধ্যম দাবি করেছে, ইরান সম্প্রতি কিছু দেশের সাবেক কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিজের প্রতিরক্ষানীতি ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা করেছে। কিন্তু এই খবরের কোনো ভিত্তি নেই এবং তেহরান তা কঠোর ভাষায় প্রত্যাখ্যান করছে।

কাসেমি বলেন, এ ধরনের কোনো আলোচনার প্রশ্নই আসে না কারণ, ইরানের প্রতিরক্ষানীতি ও ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিতে বহিঃশক্তির হস্তক্ষেপের কোনো সুযোগ রাখা হয়নি। তিনি আরো বলেন, আঞ্চলিক স্পর্শকাতর পরিস্থিতিতে ইরান নিজের প্রতিরক্ষা সক্ষমতা ধরে রাখার পাশাপাশি তা আরো শক্তিশালী করবে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, বিশ্বের কোনো দেশের জন্য হুমকি সৃষ্টি করার পরিকল্পনা ইরানের নেই এবং তেহরান জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবও লঙ্ঘন করেনি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স শুক্রবার এক খবরে দাবি করেছিল, ইরান নিজের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সম্পর্কে পাশ্চাত্যের সঙ্গে সংলাপে বসতে প্রস্তুত রয়েছে। মার্কিন সরকার গত কয়েকমাস ধরে দাবি করে আসছে, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবকে লঙ্ঘন করছে কাজেই এ ব্যাপারে তেহরানকে আলোচনায় বসতে হবে।

কিন্তু ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তার মুখপাত্র নাবিলা মাসরালি বলেছেন, ইরান ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়ে কোনো প্রস্তাব বা সমঝোতা লঙ্ঘন করেনি। ইরান নিজেও বহুবার বলেছে, নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নিয়ে কোনো কথা বলা হয়নি। –  পার্সটুডে।