বৃহস্পতিবার, ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

English

পারস্যের কানাত প্রযুক্তি: ইউনেস্কোর অন্যতম বিশ্ব ঐতিহ্য

পোস্ট হয়েছে: অক্টোবর ৩, ২০১৬ 

news-image
প্রাচীনকালে তৎকালীন পারস্যে মাটির নিচে খাল তৈরি করে অনেক দূর থেকে মরু অঞ্চলে পানি সরবরাহ করা হতো টানেলের মাধ্যমে। ওই পানি রান্না-বান্নাখাওয়াকৃষিকাজসহ অন্যান্য কাজে ব্যবহার করা হতো। ভূগর্ভস্থ এসব খালকে কানাত’ বলা হয়।
4bk7dcbca31acfagvv_800c450
 
অতীতে ১১টি কানাতের মাধ্যমে আশপাশের কয়েক কিলোমিটার দূরবর্তী এলাকায় পানি সরবরাহ করা হতো। মূলত এসব কানাতই ছিল পানির প্রধান উৎস।
 
চলতি বছর ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় স্থান পেয়েছে ইরানের কানাত ও দাশত-ই লুত মরুভূমি। ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় এ পর্যন্ত ইরানের ২১টি স্থাপনা ও ঐতিহাসিক নিদর্শন স্থান পেয়েছে। তবে এই প্রথম কানাতের মতো এমন একটি প্রযুক্তিগত ব্যবস্থাপনা এই তালিকায় স্থান পেল।
4bk735fe9c56a1akfd_800c450
 
 খ্রিস্টপূর্ব ৭০০ বছর আগে পারস্যে কানাত প্রযুক্তির প্রচলন শুরু হয়। এরপর পর্যায়ক্রমে তা অন্য কয়েকটি দেশেও ছড়িয়ে পড়ে।
4bk730c58adedfaim4_800c450
 
ইরান তথা প্রাচীন পারস্যের যে ১১টি কানাত ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের তালিকায় স্থান পেয়েছে সেগুলো হলো: কাসাবেহ গোনাবাতবালাদেহজারচহাসাম আবাদ-ই মশিরইবরাহিম আবাদভাজভানমোজদ আবাদদ্য মুনগোওহারিজ,কাসেম আবাদ ও আকবর আবাদ। সূত্র: পার্সটুডে
4bk72dd16f0adaailv_800c450
4bk7dd144cdd6aagw1_800c450
4bk85a10f6e1eebkk4_800c450