রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

পর্দা উঠল ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের

পোস্ট হয়েছে: জানুয়ারি ১৪, ২০১৮ 

news-image

আবু সাইদ: ‘নান্দনিক চলচ্চিত্র, মননশীল দর্শক, আলোকিত সমাজ’ প্রতিপাদ্যে শুরু হলো ষোড়শ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। দর্শককে সিনেমামুখী করতে রেইনবো চলচ্চিত্র সংসদ আয়োজন করেছে এ উৎসবের।শুক্রবার বিকেলে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এ সময় প্রদীপ প্রজ্বলনের মাধ্যমে উৎসবের উদ্বোধন করা হয়।

এ সময় বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, ভারতীয় চলচ্চিত্র পরিচালক গিরিস কাসারাভ্যালি ও উৎসব পরিচালক আহমেদ মুজতবা জামাল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

উৎসবে বাংলাদেশসহ মোট ৬৪টি দেশের ২১৬টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। উল্লেখযোগ্য অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর তালিকায় আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, পর্তুগাল, চেক রিপাবলিক, মাদাগাস্কার, থাইল্যান্ড, মঙ্গোলিয়া, সার্বিয়া, তুর্কি, স্পেন, জর্ডান্ প্যালেস্টাইনসহ আরো অনেক দেশ রয়েছে।

উৎসবে চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে এশিয়ান কম্পিটিশন বিভাগ, রেস্ট্রোস্পেক্টিভ, বাংলাদেশ প্যানারোমা, সিনেমা অব দ্য ওয়ার্ল্ড, চিলড্রেনস ফিল্ম, স্পিরিচুয়াল ফিল্মস, উইমেন ফিল্ম মেকার সেশনসহ শর্ট অ্যান্ড ইন্ডিপেনডেন্ট এ আটটি ক্যাটাগরিতে।

চলচ্চিত্র প্রদর্শন এবং সেমিনারের ভেন্যু হিসেবে নির্বাচন করা হয়েছে কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন, জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল ও প্রধান মিলনায়তন। এ ছাড়া আঁলিয়ঁস ফ্রসেজ মিলনায়তন, রাশিয়ান কালচার সেন্টার ও স্টার সিনেপ্লেক্সে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, ‘আমি চলচ্চিত্র প্রিয় মানুষ, আমি চাই চলচ্চিত্রে উন্নয়ন আসুক। চলচ্চিত্রের উন্নয়নে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। বিনোদনের ক্ষেত্রে এ উৎসব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সরকার যে সহযোগিতা করে আসছে তা বজায় থাকবে। ‘

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘চলচ্চিত্র আমাদের ভাবায়, এ উৎসব আমাদের চলচ্চিত্রের অনেক কাছে নিয়ে আসবে বলে মনে করি। চলচ্চিত্র আমাদের মন ও মননকে জাগাতে এবং আমাদের অনুপ্রাণিত করতে সাহায্য করে।’ উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে তুরস্কের নির্মাতা কাজিম ওজরের চলচ্চিত্র ‘জার’ প্রদর্শিত হয়।