মঙ্গলবার, ২২শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ৭ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

পরমাণু সমঝোতা ইরানের ভাবমর্যাদা উজ্জ্বল করেছে: আরাকচি

পোস্ট হয়েছে: জানুয়ারি ১৬, ২০১৭ 

news-image

পাশ্চাত্যের সঙ্গে ইরানের পরমাণু সমঝোতা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তেহরানের ভাবমর্যাদা উজ্জ্বল করেছে বলে জানিয়েছেন ইরানের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্বাস আরাকচি। এ সমঝোতা বাস্তবায়ন শুরু হওয়ার এক বছর পূর্তি উপলক্ষে রোববার তেহরানে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

আরাকচি বলেন, কিছু বিদ্বেষী দেশ ইরানের শান্তিপূর্ণ পরমাণু কর্মসূচিকে অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করে বিশ্ববাসীর সামনে এদেশ সম্পর্কে একটি বিকৃত ধারণা তুলে ধরেছিল। তারা ইরানকে আন্তর্জাতিক শান্তির জন্য হুমকি হিসেবে তুলে ধরেছিল। পশ্চিমা দেশগুলো দাবি করছিল, ইরান পরমাণু অস্ত্র তৈরির চেষ্টা করছে। কিন্তু পরমাণু সমঝোতায় সেসব মিথ্যা প্রচারণা ও ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে।

২০১৫ সালের জুলাই মাসে জাতিসংঘের পাঁচ স্থায়ী সদস্যদেশ ও জার্মানির সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা সই করে ইরান। ওই সমঝোতায় নিজের পরমাণু কর্মসূচিতে কিছুটা সীমাবদ্ধতা আনতে রাজি হয় তেহরান এবং এর বিনিময়ে ইরানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে সম্মত হয় পশ্চিমা দেশগুলো।  ২০১৬ সালের ১৫ জানুয়ারি এ সমঝোতার বাস্তবায়ন শুরু হয়।

সমঝোতায় ইরান পরমাণু অস্ত্র তৈরির চেষ্টা করছে না বলে স্বীকার করা হয়। ২০১৫ সালের জুলাই মাসেই জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ এক প্রস্তাব পাস করে এ সমঝোতাকে স্বীকৃতি দেয়।

এ সম্পর্কে ইরানের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরাকচি আরো বলেন, তার দেশের পরমাণু কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে এর আগে নিরাপত্তা পরিষদ যে ছয়টি প্রস্তাব পাস করেছিল পরমাণু সমঝোতার পর তার সবগুলো প্রত্যাহার করা হয়। এ ছাড়া, ‘ইরান পরমাণু অস্ত্র তৈরির চেষ্টা করছে’ বলে বহু বছর ধরে যে কাল্পনিক অভিযোগ করা হতো তারও পরিসমাপ্তি ঘটে। সূত্র: পার্সটুডে