বৃহস্পতিবার, ১৮ই জুলাই, ২০১৯ ইং, ৩রা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

 ‘দ্বীনি শিক্ষার প্রসার ঘটাতে আলেমদেরকে সংগ্রাম করতে হবে’

পোস্ট হয়েছে: মে ৯, ২০১৯ 

news-image

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন, নবীদের উত্তরাধিকারী হিসেবে আলেমদেরকে তৌহিদ বা একত্ববাদের প্রসার ঘটানোর জন্য সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালাতে হবে। মাদ্রাসাসহ সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানকে সমাজে দ্বীনি শিক্ষা ছড়িয়ে দেয়ার কাজে আত্মনিয়োগ করতে হবে।

তিনি বুধবার সন্ধ্যায় সমগ্র ইরানের মাদ্রাসা ও ধর্মীয় শিক্ষাকেন্দ্রগুলোর প্রায় দুই হাজার ছাত্র-শিক্ষকের এক সমাবেশে ভাষণ দিতে গিয়ে এ আহ্বান জানান। তিনি বলেন, মুসলিম বিশ্বের পাশাপাশি অমুসলিমরাও এখন দ্বীন ইসলামের শিক্ষা সম্পর্কে জানতে ও তা গ্রহণ করতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন।  কাজেই ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর দায়িত্ব এখন অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় বেড়ে গেছে। তিনি বলেন, যদি কেউ মনে করেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ধর্মীয় শিক্ষার প্রতি মানুষের আগ্রহ কমে গেছে বলে তাহলে তিনি মারাত্মক ভুলের মধ্যে রয়েছেন।

সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ইরানের অভ্যন্তরে এই মুহূর্তে ধর্মীয় শিক্ষার গুরুত্ব ইসলামি বিপ্লবের আগের তুলনায় বহুগুণ বেড়ে গেছে। সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে এবং প্রতিটি মানুষের জীবনে যাতে ধর্মীয় শিক্ষা বাস্তবায়িত হয় সেজন্য মাদ্রাসা ও ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে কাজ করে যেতে হবে।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী নবী-রাসূলদের চেষ্টা-সাধনা এবং জিহাদের ব্যাপারে পবিত্র কুরআনের বিভিন্ন আয়াত উদ্ধৃত করে বলেন, নবী-রাসূলদের ওপর শুধুমাত্র দ্বীন প্রচারের দায়িত্ব ছিল না বরং সমাজের সব ক্ষেত্রে যাতে দ্বীনি শিক্ষা বাস্তবায়িত হয় সে লক্ষ্যে তারা চেষ্টা ও সংগ্রাম করে গেছেন। কাজেই নবী-রাসূলদের উত্তরসুরী হিসেবে আলেমদেরকেও একইভাবে সংগ্রাম করতে হবে। পার্সটুডে।