সোমবার, ১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, ১লা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

ঢাকা চলচ্চিত্র উৎসব আজ শুরু, দেখানো হবে যেসব ইরানি ছবি    

পোস্ট হয়েছে: জানুয়ারি ১০, ২০১৯ 

news-image

রাজধানীতে আজ থেকে শুরু হচ্ছে ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ১৭তম আসর। সপ্তাহব্যাপী উৎসব শেষ হবে ১৮ জানুয়ারি। এবারের আসরের বিভিন্ন বিভাগে দেখানো হবে ইরানের ২৯টি ফিচার ও শর্ট ফিল্ম।

ঢাকা চলচ্চিত্র উৎসবে দেথানোর জন্য যেসব ছবির নাম তালিকাবদ্ধ করা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে পুয়া বাদকুবেহ পরিচালিত ‘ড্রেসেজ’, হোসেইন নামাজির ‘অ্যাপেন্ডিক্স’, আব্বাস নামাজদুস্তের ‘এ বিগার গেম’, মানিজেহ হেকমতের ‘ওল্ড রোড’ ও ইব্রাহিম মোখতারির ‘লিফ অব লাইফ’।

এই তালিকায় আরও রয়েছে মোহাম্মাদ হামজেয়ির ‘আজার’, মারইয়াম জাহিরিমেহরের ‘ইন্ডলেস’, রামিন রাসুলির ‘লিনা’, দারিউশ ইয়ারির ‘হান্টিং সিজন’ ও পেগাহ আরজির ‘ইন দ্যা মিস্ট’।

উৎসবের শর্ট ফিল্ম বিভাগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে আলি আসাদোল্লাহির ‘ডিফাররেন্স’, মোরতেজা আতাশ জমজমের ‘বুদ্ধাস শেম’ ও রেজা সোবহানির ‘ওয়ান কিলোগ্রাম অব ফ্লাই উইংস’।

 রেইনবো চলচ্চিত্র সংসদ আয়োজিত এবারের উৎসবে বিশ্বের ৭২টি দেশের ২১৮টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।

এর মধ্যে মধ্যে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের সংখ্যা ১২২টি, স্বল্পদৈর্ঘ্য ও স্বাধীন চলচ্চিত্রের সংখ্যা ৯৬টি। বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্কের ব্লকবাস্টার সিনেমাসেও প্রদর্শিত হবে বেশ কিছু চলচ্চিত্র।

বিকাল ৪টায় জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বিশেষ অতিথি থাকবেন তথ্য সচিব আবদুল মালেক। সভাপতিত্ব করবেন উৎসবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।বুধবার দুপুরে ঢাকা ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উৎসব পরিচালক আহমেদ মুজতবা জামাল ও কার্যনির্বাহী সদস্য ম. হামিদ, উৎসব প্রোগ্রামার ইরানি চলচ্চিত্রকার জোহরে জামনি ও যুক্তরাজ্যের চলচ্চিত্রকার ইয়াসিম গুজেল পিনার এবং উৎসবের জুরি সদস্য চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।

সংবাদ সম্মেলনে আহমেদ মুজতবা জামাল বলেন, এশিয়ান প্রতিযোগিতা, রেট্রোস্পেকটিভ, বাংলাদেশ প্যানারোমা, সিনেমা অব দ্য ওয়ার্ল্ড, চিল্ড্রেন্স ফিল্ম, স্পিরিচুয়াল ফিল্মস, শর্ট অ্যান্ড ইন্ডিপেন্ডেন্ট ফিল্ম ও উইমেন্স ফিল্ম সেকশনে ৭২টি দেশের দুশ’ আঠারোটি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।

৯ দিনের এ উৎসবের ভেন্যু হিসেবে বেছে নেয়া হয়েছে যমুনা ব্লকবাস্টার সিনেমাস, জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তন ও কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তন, কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন, শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তন, অলিয়ঁস ফ্রঁসেজ।