বৃহস্পতিবার, ২৭শে জুন, ২০১৯ ইং, ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

ঢাকায় জমে উঠেছে ইরানি ফুড ফেস্টিভাল

পোস্ট হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৯ 

news-image

বাহারি খাবার আর দর্শণার্থীদের পদচারণায় জমে উঠেছে ঢাকাস্থ ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ও হোটেল সারিনার যৌথ উদ্যোগে শুরু হওয়া সপ্তাহব্যাপী ইরানিয়ান ফুড ফেস্টিভাল। শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর সারিনা হোটেলে এ ফেস্টিভালের শুভ উদ্বোধন করেন ঢাকাস্থ ইরানি রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ রেযা নাফার।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওমান অ্যাম্বেসির হেড অফ মিশন তায়েব সালিম আব্দুল্লাহ আল আলাভ‌ি,তুরস্কের ডেপুটি চিফ অফ মিশন ইনিস ফারুক ইরদাম, আফগানিস্তান দূতাবাসের সিনিয়র কূটনীতিক ফোয়াদ আহমেদ নাজিম জাদেহ, ইরাক দূতাবাসের সিনিয়ক কূটনীতিক কাহতান আল ইয়াসির,ইরান কালচারাল সেন্টারের কাউন্সিলর সাইয়্যেদ মেহদী হোসেইনী ফায়েক প্রমুখ। এছাড়া উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকাস্থ ইরান দূতাবাসের বিভিন্ন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

সরেজমিন দেখা গেছে, জাকজমকপূর্ণ ইরানিয়ান ফুড ফেস্টিভালের এই আয়োজন বেশ জমে উঠেছে। নানা শ্রেণি -পেশার মানুষকে এসব খাবার গ্রহণ করতে দেখা গেছে।এছাড়া পরিবার-পরিজন নিয়েও অনেকে এসেছেন এই বাহারি খাবারের এই আয়োজনে।

হোটেল কর্মকর্তা নাবিলা তাবাসুম জানান, এ ফেস্টিভাল প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা থেকে শুরু করে রাত ১১টা পর্যন্ত চলছে। ৮ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ ফেস্টিভাল সবার জন্য উন্মুক্ত থাকছে। ফেস্টিভাল উপলক্ষে নানা রকম ফলমূল ও মসলা সামগ্রী সরাসরি ইরান থেকে আনা হয়েছে। বিশিষ্ট ইরানি শেফ হোসাইন নাজমির তত্ত্বাবধানে প্রস্তুত করা হয়েছে বিশেষ স্বাদের খাবার।

তিনি জানান, ভেড়া বা গরুর মাংসের তৈরি বেশ কিছু কাবাব রয়েছে যা ইরানে খুবই জনপ্রিয়। এসব কাবাবের মধ্যে যে কাবাবটির নাম সবার আগে উচ্চারিত হয় সেটি হলো কাবাব কুবিদেহ। এটি বর্তমানে ইরানের জাতীয় খাবারে পরিণত হয়েছে। এই কাবাবের অপর নাম চেলু কাবাব। জাফরান, গোশত, মাখন ও টমেটো ফ্রাইয়ের সমন্বয়ে প্রস্তুতকৃত কাবাব কুবিদেহ ও রাইস খেতে দারুণ সুস্বাদু। ইরানের বিখ্যাত কিছু কাবাবের মধ্যে রয়েছে, কুবিদেহ, বার্গ, শেনজে এবং বাখতিয়ারি।