শনিবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

জাতিসংঘে ট্রাম্পের তীব্র সমালোচনা করলেন ইরানের প্রেসিডেন্ট

পোস্ট হয়েছে: সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭ 

news-image

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি তার দেশের বিরুদ্ধে “অজ্ঞতাপ্রসূত ও বিদ্বেষমূলক” বক্তব্যের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের তীব্র সমালোচনা করেছেন।

বুধবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭২তম বার্ষিক অধিবেশনে দেয়া ভাষণে প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, “মার্কিন প্রেসিডেন্ট ইরানের জনগণের বিরুদ্ধে অজ্ঞতাপূর্ণ, কুৎসিত ও বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছেন যা ছিল মিথ্যা তথ্য ও ভিত্তিহীন অভিযোগে পরিপূর্ণ। এ ধরনের বক্তব্য জাতিসংঘের মর্যাদার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়।

এর আগে, মঙ্গলবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ভাষণে ট্রাম্প মধ্যপ্রাচ্যে ‘অস্থিতিশীল কার্যক্রম’র জন্য ইরানকে অভিযুক্ত করেন। তিনি আরো বলেছেন, “প্রতিবেশী দেশগুলো সম্প্রতি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই ও অর্থায়ন বন্ধের জন্য যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ইরান তার বিপরীতে রয়েছে।”

ট্রাম্প তার বক্তৃতায় ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে সই হওয়া ২০১৫ সালের পরমাণবিক চুক্তিকে আমেরিকার জন্য বিব্রতকর বলে উল্লেখ করেন। তিনি একে আমেরিকার জন্য সবচেয়ে খারাপ চুক্তি বলেও মন্তব্য করেন।

জবাবে প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে সই হওয়া সমঝোতা বা জিসিপিওএ একটি আন্তর্জাতিক চুক্তি যার প্রতি সমর্থন দিয়েছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। তিনি আরো বলেছেন, জেসিপিওএ বাতিলের বিষয়ে ইরান কখনো প্রথম দেশ হবে না।

বক্তৃতায় রুহানি তার দেশের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিসহ ইরানের প্রতিরক্ষা শক্তি সম্পর্কে কথা বলেছেন। তিনি বিশ্ব সম্প্রদায়কে আশ্বস্ত করেন যে, ইরানের সামরিক শক্তি কেবল নিজের প্রতিরক্ষার জন্য এবং আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা পুনঃপ্রতিষ্ঠায় ব্যবহৃত হবে। ইহুদিবাদী ইসরাইলের সমালোচনা করে প্রেসিডেন্ট রুহানি বলেন, তারা নিজেকে শান্তিপ্রিয় দেশ বলে দাবি করছে, তা কিছুতেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।

রুহানি বলেন, ইরান চরমপন্থী ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য সবচেয়ে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। ইরান নিরাপদ ও স্থিতিশীল মধ্যপ্রাচ্য দেখতে চায় এবং সন্ত্রাসবাদ অবসানের জন্য অন্যদের সহযোগিতাকে স্বাগত জানান। – পার্সটুডে।