রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

চকলেটে প্লাস্টিক!

পোস্ট হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০১৬ 

news-image

চকলেটে প্লাস্টিক পাওয়া যাওয়ায় মার্স ও স্নিকারস নামের দুটি চকলেট তৈরি প্রতিষ্ঠান তাদের উৎপাদিত বিপুল পরিমাণ চকলেট অন্তত ৫৫টি দেশ থেকে প্রত্যাহার করে নিচ্ছে। যুক্তরাজ্যে মার্স ফানসাইজ ও মিল্কি ওয়ে ফানসাইজ বারস, স্নিকারস মিনিয়েচারসহ বিভিন্ন ধরনের প্যাকেট চকলেটে প্লাস্টিক মিশ্রিত রয়েছে অভিযোগ ওঠার পর এধরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এধরনের যেসব চকলেটের মোড়কে আগামী ৮ মে ও দোসরা অক্টোবর আগ পর্যন্ত বিক্রির জন্যে যে তারিখ লিপিবদ্ধ রয়েছে এমন সব পণ্য না খেতে ও প্রত্যাহার করে নিতে বলা হয়েছে। খবর বার্তা সংস্থা এপি’

মার্স ইউকে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, এধরনের ঘটনা একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। তবে গত ৮ জানুয়ারি জার্মানিতে একটি চকলেটে লাল প্লাস্টিকের টুকরো পাওয়া যায়। ওই চকলেটটি ছিল স্নিকার’এর একটি চকলেট খণ্ডে। নেদারল্যান্ডের একটি কারখানায় ওই চকলেটের মোড়কে ব্যবহৃত প্লাস্টিক থেকেই তা চকলেটে মিশে গিয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এঘটনার পর নেদারল্যান্ড, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, ইতালি, স্পেন, শ্রীলঙ্কা ও ভিয়েতনামে আতঙ্ক দেখা দেয়। ইরানে মার্স ও স্নিকারস’এর তৈরি চকলেট বেশ জনপ্রিয়। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চকলেট কেনার সময় সতর্ক হওয়া ছাড়াও পুনরায় নতুন কোনো আদেশ না আসা পর্যন্ত চকলেট না কিনতে বরং পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। সূত্র: ফিন্যান্সিয়াল ট্রিবিউন