শুক্রবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ৩রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

কূটনীতিতে ইসলামী বিপ্লবের লক্ষ্য ও চেতনা ধরে রাখুন: সর্বোচ্চ নেতা

পোস্ট হয়েছে: আগস্ট ২৮, ২০১৭ 

news-image

ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী ইরানি কূটনীতির ক্ষেত্রে ধর্মীয় এবং বিপ্লবী লক্ষ্য ও চেতনাগুলো ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

সরকার সপ্তাহ পালনের প্রেক্ষাপটে তিনি শনিবার ইরানি প্রেসিডেন্ট ডক্টর হাসান রুহানি ও তার মন্ত্রীসভাকে দেয়া পরামর্শমূলক এক সাক্ষাতে এই আহ্বান জানিয়েছেন।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা এ প্রসঙ্গে বলেছেন, কূটনৈতিক ক্ষেত্রে ইসলামী বিপ্লবকে নিয়ে গৌরব অনুভব করা উচিত এবং ইরানের এ বিপ্লবের সুবাদে যেসব ভালো রীতি গড়ে উঠেছে, যেমন সাম্রাজ্যবাদের মোকাবেলায় রুখে দাঁড়ানো, জুলুম-বিরোধী সংগ্রাম ও আধিপত্যবাদের বিরোধিতা করা-এসব কাজেও মর্যাদা অনুভব করতে হবে।

যারা বিপ্লবী নীতি ও মূল্যবোধগুলোতে অবিচল থাকে তাদের প্রতি অন্যদের মধ্যে সম্মানবোধ জেগে ওঠে- এ কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেন, বিপ্লবী নীতি ও মূল্যবোধগুলোতে অবিচল থাকার কাজগুলোর সঙ্গে নানা মারপ্যাঁচ, কৌশলগত পিছু-হটা বা অনুশীলন কিংবা শক্তি সঞ্চয়ের জন্য সময় ক্ষেপণ ও কূটনৈতিক প্রহসন শিল্পের কোনো সংঘাত নেই।

তিনি রুহানির সরকারকে কেবল গুটি-কয়েক দেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক বিস্তারের বিষয়ে মনোযোগী না হয়ে গোটা বিশ্বের ওপর কূটনৈতিক ছাতা মেলে ধরার পরামর্শ দিয়েছেন।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা ইসলামী এই দেশের অর্থনীতিকে পুরোপুরি জ্বালানী-তেল নির্ভরতা থেকে মুক্ত করার এবং যুব সমাজের বেকারত্ব দূর করাসহ জনগণের জীবন-উপকরণ সংক্রান্ত নানা সমস্যা দূর করার বিষয়ে বিরতিহীন প্রচেষ্টা চালানোর আহ্বান জানান। অর্থনীতি এখন ইরানের আসল অগ্রাধিকারযোগ্য বিষয় বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা তার দেশের ১২ তম সরকারকে পরামর্শ দিতে গিয়ে জনগণের সমস্যাগুলো সমাধানের বিষয়ে জিহাদি মনোভাব নিয়ে বাড়তি শ্রম দেয়ার এবং ক্লান্তিহীনতার চেতনা পোষণের পাশাপাশি আভিজাত্যপনা পরিহার, জনগণের সঙ্গে শক্তিশালী সম্পর্ক রাখাসহ জনগণের মনোবল ধরে রাখা ও তা জোরদারের ওপরও  গুরুত্ব দেন। সূত্র: পার্সটুডে।