শুক্রবার, ২৫শে মে, ২০১৮ ইং, ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

English

ওআইসির ‘পক্ষপাতমূলক’ বিবৃতিতে ক্ষুব্ধ ইরান

পোস্ট হয়েছে: মে ১৪, ২০১৮ 

news-image

পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকার বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণার প্রতি সমর্থন জানিয়ে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা ওআইসির দেওয়া বিবৃতির নিন্দা জানিয়েছে ইরান। ওআইসি মহাসচিব ইউসুফ বিন আহমাদ আল ওথাইমিনের দেওয়া বক্তব্যকে পক্ষপাতমূলক ও অগঠনমূলক বিবৃতি বলে অভিহিত করেছে দেশটি।

ওআইসি’র মহাসচিব ইউসুফ বিন আহমাদ আল ওথাইমিন এক বিবৃতিতে ইরানের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা নিয়ে বিতর্কে রিয়াদ ও তেলআবিবের প্রতি সমর্থন জানানোর পাশাপাশি এই চুক্তি থেকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণার প্রতি সরাসরি সমর্থন জানিয়েছেন।

শুক্রবার ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি আঞ্চলিক ইস্যুতে ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন জানিয়ে ওআইসি মহাসচিবের এ বক্তব্যকে সংস্থার লক্ষ্য উদ্দেশ্যর পরিপন্থি বলে অভিহিত করেন।

তিনি ওআইসি মহাসচিবের ইরান বিরোধী অবস্থানের তীব্র নিন্দা জানিয়ে দখলদার ইসরাইল ও বিশ্ব সাম্রাজ্যবাদী শক্তির পক্ষে অবস্থান না নেয়ার জন্য ওআইসি’র প্রতি তিনি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ওয়াইসি মহাসচিবের বক্তব্য সংস্থার সম্পূর্ণ পরিপন্থি এবং তার কর্মপরিধির বাইরে। তার বক্তব্য ওআইসির নিরপেক্ষতার মূলনীতির লঙ্ঘন। একটি দেশের বোকামীপূর্ণ ও বিদ্বেষী নীতি চরিতার্থ করার হাতিয়ারে পরিণত হয়েছে ওআইসি। সংস্থাটি মুসলিম দেশগুলোর সমস্যা সমাধানের কোনো চেষ্টা না করে বরং একটি দেশের পরামর্শ অনুযায়ী এমনসব কাজ করছে যা কেবল ইসরাইলের স্বার্থ রক্ষা করছে।

ওআইসি মহাসিচবের এই বক্তব্য সংস্থাটির গ্রহণযোগ্যতাকে খাটো করার আরেকটি প্রচেষ্টা বলে উল্লেখ করেন ইউসুফ বিন আহমাদ আল আসিমে।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার, ৮ মে ইরানের সঙ্গে ২০১৫ সালে বিশ্বের ছয় পরাশক্তির সাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র এবং ইরানের ওপর নতুন অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাও জারি করে। এই চুক্তি অনুযায়ী ইরানের পরমাণু কর্মসূচি বন্ধ করার বিনিময়ে দেশটির উপর থেকে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়েছিলো। ২০১৫ সালে ছয়টি দেশের (যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি, রাশিয়া ও চীন) সাথে এই চুক্তি হয়েছিল ইরানের। তবে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ইরানের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরো জোরদার করছে চীন ও রাশিয়া। অন্যদিকে যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স ও জার্মানি চুক্তিতে থাকা সব পক্ষের সঙ্গে কাজ করার ঘোষণা দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র যেন চুক্তি বাস্তবায়নে বাধা না দেয় সে জন্য তাদেরকে এই তিন ইউরোপীয় মিত্র অনুরোধও করেছে। সূত্র: প্রেসটিভি।