বৃহস্পতিবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং, ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

English

এ যেন পারস্যের রূপকথা

পোস্ট হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৬ 

news-image

পিক্টোরিয়াল এনসাইক্লোপেডিয়া বা পারস্যের বিভিন্ন প্রতীক নিয়ে প্রকাশ হল সচিত্র পুস্তক। বইটির নামকরণ করা হয়েছে ‘পিক্টোরিয়াল এনসাইক্লোপেডিয়া অব ইরানিয়ানস সিম্বলস’। ইরানের  অলাভজনক ইনস্টিটিউট বাহারান এটি প্রকাশ করেছে। উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার জন্যে এ ইনষ্টিটিউট কাজ করে। গত সোমবার এটি প্রকাশিত হয়।

প্রকাশনা অনুষ্ঠানে পুস্তকটির লেখক বাহমান নামভার-মোতলাক ও মানিজেহ কানগারানি ছাড়াও বিশেষজ্ঞ ও ছাত্ররা উপস্থিত ছিলেন। নামভার-মোতলাক বলেন, ইরানের সাংস্কৃতিক প্রতীক, পৌরাণিক কাহিনী সম্পর্কে যে বিপুল আগ্রহ রয়েছে, সে সম্পর্কে জানাতেই বইটি প্রকাশ করা হয়েছে। পারস্যের চিত্রকলা ও সাহিত্য সম্পর্কে এতে বিশদ সচিত্র বর্ণনা রয়েছে।

নামভার-মোতলাক ও কানগারানি ইরানের অন্তত শ’খানেক পৌরাণিক প্রতীক সংগ্রহ করেন। তবে এ বইতে এসব প্রতীক ও পৌরাণিক কাহিনীর ৪০টি সন্নিবেশিত করেছেন তারা। শহীদ বেহেশতি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আলী আব্বাসি এনসাইক্লোপেডিয়াকে মূল্যবান ও চিত্রকলা এবং সংস্কৃতির অন্যতম উৎস হিসেবে অভিহিত করেন। ড. নামভার-মোতলাক এধরনের একটি বই লেখার জন্যে দীর্ঘদিন ধরে ইচ্ছা পোষণ করে আসছিলেন এবং তার এ বইটি জ্ঞান চর্চার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় হয়েই থাকবে।

সাহার প্রকাশনা ইনস্টিটিউট ‘পিক্টোরিয়াল এনসাইক্লোপেডিয়া অব ইরানিয়ান সিম্বল’টি প্রকাশ করে।

সূত্র: তেহরান টাইমস