মঙ্গলবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং, ১১ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

English

ইরান শত্রুদের হুমকিগুলোকে সুযোগে পরিণত করেছে: সর্বোচ্চ নেতা

পোস্ট হয়েছে: মার্চ ২১, ২০১৮ 

news-image

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা হযরত আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী প্রতিরোধমূলক অর্থনৈতিক কর্মসূচির আওতায় জাতীয় উৎপাদন জোরদারের  কঠোর ও সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের ইরানি জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি আজ (মঙ্গলবার) সন্ধ্যায় নতুন ফার্সি সন ১৩৯৭ শুরু হওয়া উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এই আহ্বান জানান।

তার ওই ভাষণ ইরানের রাষ্ট্রীয় রেডিও ও টেলিভিশন চ্যানেলগুলো থেকে সম্প্রচার করা হয়।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বিগত ফার্সি বছরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনসহ ইরানি জাতির নানা সাফল্য, উপস্থিতি ও শক্তিমত্তার প্রশংসা করেন। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেছেন, বিগত বছরে শত্রুদের নানা হুমকি ইসলামী ইরানের কোনো ক্ষতি করতে পারেনি, বরং  ইসলামী ইরান ওইসব হুমকিকে সুযোগে রূপান্তর করছে।

বিগত ফার্সি বছরে বিদেশীদের মদদে ইরানে দাঙ্গা-হাঙ্গামা সৃষ্টির চেষ্টার কথা তুলে ধরে তিনি বলেছেন, দূরদর্শী ও বিচক্ষণ ইরানি জাতি গত বছরের শেষের কয়েক মাসে কয়েকটি বিশাল গণ-মিছিলে অংশ নিয়ে  অশান্তি সৃষ্টির ষড়যন্ত্রগুলো বানচাল করে দেয়।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেন, ‘শত্রুরা অশান্তি সৃষ্টিকারী কতিপয় ব্যক্তির দাঙ্গা-হাঙ্গামাকে ইরানি জনগণের কাজ বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছিল, কিন্তু ইরানি জনগণ দাঙ্গাবাজদের রুখে দাঁড়ায়।’ আর এভাবে ওইসব ঘটনায় ইরানের মুসলিম জাতির শক্তিমত্তা ও পরাক্রম অতীতের চেয়েও বেশি স্পষ্ট হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী জাতীয় উৎপাদন বৃদ্ধিকে তার দেশের জন্য অন্যতম প্রধান জরুরি বিষয় হিসেবে তুলে ধরে ‘ইরানি পণ্যগুলোর প্রতি সহায়তা’-কে নতুন ফার্সি বছরের নাম ও শ্লোগান বলে ঘোষণা করেন। নতুন ফার্সি বছরের প্রথম তিন মাস যথাক্রমে আরবি পবিত্র রজব, শাবান ও রমজান মাসের একই সময়ে হওয়ায় ইরানি জাতি বস্তুগত সমৃদ্ধি অর্জনের পাশাপাশি আধ্যাত্মিক সমৃদ্ধি অর্জনের সুযোগও পাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

ভাষণের শুরুতে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা নওরোজ উৎসব বা নববর্ষ উপলক্ষে এই উৎসব পালনকারী ইরানি জাতিসহ অন্য জাতিগুলোর প্রতি শুভেচ্ছা জানান। নওরোজ মার্চ মাসের শেষের দিকে বসন্ত ঋতুতে শুরু হয়।

– পার্সটুডে|