রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

ইরানে প্রথম আন্তর্জাতিক ন্যানোটেকনোলজি অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত

পোস্ট হয়েছে: এপ্রিল ২২, ২০১৮ 

news-image

প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হয়ে গেল আন্তর্জাতিক ন্যানোটেকনোলজি অলিম্পিয়াড (আইএনও) ২০১৮। ইরানের রাজধানী তেহরানের পারদিস টেকনোলজি পার্কে ১০ এপ্রিল অলিম্পিয়াড শুরু হয়ে শেষ হয় ১৫ এপ্রিল। এতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিশ্বের চারটি দেশের ৯টি টিম। ন্যানো টেকনোলজি সম্পর্কে নিজেদের আইডিয়া ও তথ্য ভাগাভাগি করার জন্য আন্তর্জাতিক ন্যানোটেকনোলজি অলিম্পিয়াড অংশগ্রহণকারীদের জন্য একটি বড় সুযোগ বলে মনে করেন আয়োজকরা।

আইএনও স্টেয়ারিং কমিটির চেয়ারম্যান আলি বেইতোল্লাহি বলেন, যেহেতু অলিম্পিয়াডের মূল বিষয় হলো নিজেদের উদ্ভাবনকে চ্যালেঞ্জ করা। সেহেতু এবারের অলিম্পিয়াডে চ্যালেঞ্জের জন্য ন্যানোটেকনোলজি সংক্রান্ত উল্লেখযোগ্য সব সমাধান প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রথমবারের মতো এই ন্যানোটেকনোলজি অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণকারীরা ন্যানোটেকনোলজির মাধ্যমে পানি ও বর্জ্য পানি সোধন, কৃষি, খাদ্য ও মোড়কজাত, বিকল্প জ্বালানি, ওষুধ ও মেডিয়েশন, তথ্য ও যোগাযোগ সংশ্লিষ্ট বৈশ্বিক যতসব চ্যালেঞ্জ রয়েছে তার জন্য নিজেদের উদ্ভাবিত সমাধানসমূহ উপস্থাপন করেন। এই ধরনের টিম ওয়ার্ককে আইএনও এর ইতিবাচক দিক বলে অভিহিত করেছেন আলি বেইতোল্লাহি। তিনি বলেন, মেধাবী গবেষকদের একে অপরের সঙ্গে সংযুক্ত হতে এই ধরনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা একটি বড় সুযোগ।

বিশ্বের প্রথম ন্যানোটেকনোলজি অলিম্বিপয়াডে চারটি টিমকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এতে সর্বোচ্চ স্কোর নিয়ে তাইওয়ানের টিম ৩ হাজার ইউরো পুরস্কার লাভ করে। তারা নতুনত্ব, ব্যবসা এবং বিজ্ঞান-প্রযুক্তি- তিন ক্ষেত্রে সবার চেয়ে ভালো স্কোর করেন। ব্যবসা উন্নয়ন সংক্রান্ত উপস্থাপনার পরিপ্রেক্ষিতে ইরানি দলের প্রকল্প সেরা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। পুরস্কার হিসেবে তারা জিতেছেন ২ হাজার ইউরো। দক্ষিণ কোরিয়ার টিমও ২ হাজার ইউরো পুরস্কার লাভ করেছে। অন্যদিকে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি উন্নয়নের ক্ষেত্রে মালয়েশিয়া টিম ২ হাজার ইউরো পুরস্কার লাভ করেছ। সূত্র: তেহরান টাইমস।