রবিবার, ১৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

English

ইউনেস্কোর আল-আকসা বিষয়ক প্রস্তাবকে স্বাগত জানাল ইরান

পোস্ট হয়েছে: অক্টোবর ১৮, ২০১৬ 

news-image

মুসলমানদের প্রথম ক্বেবলা আল-আকসা মসজিদের সঙ্গে ইহুদিবাদী ইসরাইলের কোনো সম্পর্ক নেই বলে জাতিসংঘের শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো যে রায় দিয়েছে তাকে স্বাগত জানিয়েছে ইরান। ইউনেস্কো সম্প্রতি এক প্রস্তাবে বাইতুল মোকাদ্দাস (জেরুজালেম) শহরে অবস্থিত ওই মসজিদ চত্ত্বরে ইসরাইলের সব ধরনের তৎপরতাকে অবৈধ বলেও ঘোষণা করেছে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি ইউনেস্কোর এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, এর মাধ্যমে আল-আকসা মসজিদের ওপর মুসলমানদের ধর্মীয় অধিকার প্রতিষ্ঠিত হলো।

ইউনেস্কোর প্রস্তাবে বলা হয়, আল-আকসা মসজিদ এবং এর আঙিনা কেবল মুসলমানদের জন্যই পবিত্র। এছাড়া, এই মসজিদে মুসলমানদের অবাধ প্রবেশাধিকারে ইসরাইলি বাধাদানের তীব্র নিন্দা জানানো হয়। সেইসঙ্গে ‘দখলদার শক্তি’ ইসরাইলকে ঐতিহাসিক বাস্তবতা মেনে নিয়ে আল-আকসা মসজিদের ওপর যেকোনো আগ্রাসী তৎপরতা বন্ধ করার আহ্বান জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার ইউনেস্কোতে আল-আকসা মসজিদ সংক্রান্ত প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেয় আলজেরিয়া, ব্রাজিল, চীন, ইরান, রাশিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকাসহ ২৪টি দেশ। অন্যদিকে আমেরিকা, ব্রিটেন, জার্মানি, হল্যান্ড, লিথুয়ানিয়া ও এস্তোনিয়া প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেয়। এছাড়া, আলবেনিয়া, আলজেরিয়া, ফ্রান্স, গ্রিস, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, স্পেন ও সুইডেনসহ ২৬টি দেশ ভোটদানে বিরত থাকে। আর সার্বিয়া এবং তুর্কমেনিস্তান ভোটাভুটিতে উপস্থিতই হয় নি।

এই ভোটাভুটিকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করছেন পর্যবেক্ষকরা। কারণ এর মাধ্যমে আল-আকসা মসজিদের ওপর ইহুদি ধর্মের আধ্যাত্মিক দাবি নস্যাৎ হয়ে গেছে। ইহুদিবাদীরা এই মসজিদকে ‘টেম্পল মাউন্ট’ হিসেবে অভিহিত করলেও ইউনেস্কোর প্রস্তাবে এটিকে আল-আকসা মসজিদ/আল-হারাম আল-শরীফ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

জাতিসংঘের অঙ্গ সংগঠনের এ প্রস্তাবের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে ইহুদিবাদী ইসরাইল। প্রস্তাবটি পাস হওয়ার পরের দিনই জাতিসংঘের এ সংস্থার সঙ্গে সহযোগিতা স্থগিত করেছে তেল আবিব। সূত্র: পার্সটুডে